ক্ষমতার শিখরে ১৬ বছর পর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের বিদায়

0
38
ক্ষমতার শিখরে ১৬ বছর পর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের বিদায়

তিনি একজন বিশ্বনেতা৷ একজন নারী নেত্রী৷ বিশ্বের শীর্ষ ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের একজন৷ টানা চারবার নির্বাচিত হয়েছেন সরকার প্রধান৷ এখন বিদায় নিচ্ছেন এসব দায়িত্ব থেকে৷ তিনি জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ কিন্তু কেমন করে জার্মানির মত একটি গণতান্ত্রিক দেশে ক্ষমতার শিখরে রইলেন ম্যার্কেল?

দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছরের কার্যকালের পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিলেন জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ ক্ষমতা হস্তান্তরের ঠিক আগে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিলেন জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷বিদায় নেবার আগে নিজের ভাষণে ম্যার্কেল গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ রক্ষার পক্ষে কথা বললেন ৷ তার মতে, যখনই কোথাও ঘৃণা ও হিংসাকে নিজস্ব স্বার্থ রক্ষার বৈধ হাতিয়ার হিসেবে গণ্য করা হয়, তখনই গণতন্ত্রকামী হিসেবে আমাদের সহিষ্ণুতার সীমা শেষ হওয়া উচিত৷ তিনি জার্মানির মানুষের উদ্দেশ্যে ঘৃণার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানালেন৷ অন্যের দৃষ্টিভঙ্গি থেকেও সবসময়ে জগতকে দেখার পরামর্শ দেন তিনি৷ কখনোই আশাবাদ ত্যাগ না করারও ডাক দেন ম্যার্কেল৷

আগামী সপ্তাহে নতুন সরকারের কার্যভার গ্রহণ করার কথা৷১৬ বছর পর আঙ্গেলা ম্যার্কেল সাবেক হচ্ছেন৷ এরপর তিনি কী করবেন? কীভাবে কাটবে তার সময়?

তিনি বলেন, ‘‘আমি প্রথমে কিছু না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তারপর আমি দেখতে চাই কী হয়৷’’ যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময় জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মানসূচক ডক্টরেট গ্রহণ অনুষ্ঠানে ম্যার্কেল বলেন, ‘‘আমি হয়ত কিছু পড়তে চেষ্টা করবো, তারপর আমার চোখ বন্ধ হয়ে আসতে চাইবে, কারণ আমি ক্লান্ত, তারপর আমি একটু ঘুমাবো, এবং তারপর দেখবো কী করা যায়৷’’    যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময় তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, প্রথমে একটা ‘ব্রেক’ নেবেন এবং কোনো ধরনের আমন্ত্রণ গ্রহণ করবেন না৷ তার কাজগুলো ‘এখন অন্যজন সামলাবে’ আমার মনে হয় এটা আমার খুবই ভালো লাগবে৷’’

গত ১৬ বছর প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনি কী করবেন, তা ঠিক করা থাকতো৷ এমন ব্যস্ত সময় পার করার পর অবসরে গিয়ে কি তার মনে হবে না যে, কী যেন নেই? সম্প্রতি এমন প্রশ্ন করা হলে ম্যার্কেল বলেন, ‘‘আপনি কী মিস করবেন সেটা তখনই বোঝা সম্ভব যখন সেটা আর আপনার থাকবে না৷’’

ম্যার্কেল অবসরে গেলেও তার স্বামী কোয়ান্টাম কেমিস্ট ইওয়াখিম সাওয়ার এখনই অবসরে যাচ্ছেন না৷ ৭২ বছর বয়সি সাওয়ারের অন্তত আগামী বছর পর্যন্ত বার্লিনের হুমবোল্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে ঊর্ধ্বতন গবেষক হিসেবে কাজ করার কথা৷

পেনশন হিসেবে ম্যার্কেল মাসে প্রায় ১৫ লাখ টাকা পাবেন বলে একটি হিসেব বলছে৷ এছাড়া আজীবন নিরাপত্তা ও চালকসহ একটি গাড়ি পাবেন৷ সংসদ ভবনে কয়েকজন কর্মকর্তাসহ একটি অফিসও পাবেন৷

সাবেক চ্যান্সেলর হেলমুট স্মিট দায়িত্ব ছাড়ার পর একটি সাপ্তাহিক পত্রিকার অন্যতম প্রকাশক হয়েছিলেন৷ এছাড়া বিভিন্ন জায়গায় বক্তৃতা দিতেন৷ হেলমুট কোল রাজনীতি বিষয়ে একটি কনসালটেন্সি ফার্ম গড়ে তুলেছিলেন৷ এছাড়া লবিয়িস্ট ও উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন৷ আর ম্যার্কেলের আগে যিনি চ্যান্সেলর ছিলেন সেই গেয়ারহার্ড শ্র্যোডার ক্ষমতা ছাড়ার কিছুদিনের মধ্যে রাশিয়ার গ্যাস কোম্পানিতে চাকরি নিয়ে সমালোচিত হয়েছিলেন৷