৪০ জেলার ৯৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে

0
888

সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের । প্রথম পর্বে ৪০ জেলার ৯৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে । বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোট। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোথাও কোনো গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি। নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের বিরাজ করছে উৎসাহ উদ্দীপনা। ভোটগ্রহণ উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে ইসি।

উৎসবমুখরভাবে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন আয়োজনে সব ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ । তিনি বলেন, “সংখ্যালঘু সম্প্রদায়সহ ভোটারদের নির্বিঘ্ন পরিবেশ তৈরিতে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কোনো ধরনের আইন লঙ্ঘন বরদাশত করা হবে না।”

ইসি কর্মকর্তারা জানান, দশম সংসদ নির্বাচনে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি অংশ না নিলেও উপজেলা নির্বাচনে তারা অংশ নিচ্ছে। যে কারণে উপজেলা নির্বাচন বরাবরের চেয়ে এবার হয়ে উঠেছে আরও জমজমাট। ফলে এ নির্বাচন ঘিরে বিরাজ করছে জাতীয় নির্বাচনের আমেজ । ইসি সচিবালয়ের সহকারী সচিব আশফাকুর রহমান জানান, নির্বাচনের ৩২ ঘণ্টা পূর্বে সকল প্রচার-প্রচারণা বন্ধ থাকবে। তা অব্যাহত থাকবে নির্বাচনের পর ৬৪ ঘণ্টা পর্যšত্ম। কেউ আইন ভঙ্গ করলে কারাদন্ড ও অর্থদন্ডে দন্ডিত হবেন। এমনকি প্রার্থিতাও বাতিল হবে।

সুষ্ঠু, অবাধ ও শাšিত্মপূর্ণভাবে প্রথম ধাপের নির্বাচন সম্পন্ন করতে সোমবার থেকে ৯৭ উপজেলায় নেমেছে সেনাবাহিনী। নির্বাচনের আগে ও পরে মিলিয়ে মোট পাঁচ দিন তারা নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মাঠে থাকবেন তারা । এ ছাড়া মোবাইল ফোর্স হিসেবে পর্যাপ্তসংখ্যক র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছেন । নির্বাচনে সার্বিক আইনশৃংখলা রক্ষায় ৩৮৮ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ৯৭ বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

৯৭টি উপজেলায় মোট এক হাজার ২৭৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন ৪৩২ জন। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) প্রার্থীর সংখ্যা ৫১৩ জন। ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) প্রার্থীর সংখ্যা ৩২৯ জন । এ সব এলাকায় মোট ভোটার এক কোটি ৬৪ লাখ ৭৮ হাজার ১৭২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮১ লাখ ৯১ হাজার ৫৩৭ জন, মহিলা ভোটার ৮২ লাখ ৮৬ হাজার ৬৩৫ জন । মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ছয় হাজার ৯৯৫টি, ভোটকক্ষ ৪৩ হাজার ২৯০টি । প্রিসাইডিং অফিসার প্রতি ভোটকেন্দ্রে একজন করে ছয় হাজার ৯৯৫ জন। সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার প্রতি ভোটকক্ষের জন্য একজন করে মোট ৪৩ হাজার ২৯০ জন এবং পোলিং অফিসার সংখ্যা ৮৬ হাজার ৫৮০ জন ।