পুতিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে অপ্রত্যাশিত ঘোষণা: সাংবিধানিক পরিবর্তন,  সরকারের পদত্যাগ

0
535

পুতিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে অপ্রত্যাশিত ঘোষণা: সাংবিধানিক পরিবর্তন,  সরকারের পদত্যাগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তার ক্ষমতায় থাকা দীর্ঘায়িত করতে পারে, সংসদে এমন সাংবিধানিক পরিবর্তনের প্রস্তাব দেন। বুধবার (১৫ জানুয়ারি) জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে পুতিন বলেন, রাশিয়ায় বড় ধরনের সাংবিধানিক পরিবর্তনের প্রয়োজন। তিনি রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পদের নির্বাচনে সংসদকে ক্ষমতা দেওয়ার প্রস্তাব দেন। দেশের সাংবিধানিক পরিবর্তনের জন্য গণভোটেরও প্রস্তাব দেন।

তার ওই প্রস্তাবের কয়েক ঘণ্টা পর পদত্যাগের ঘোষণা দেয় দেশটির সরকার। সরকারের পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেন, প্রেসিডেন্টের প্রস্তাবগুলো রাশিয়ার ক্ষমতার ভারসাম্যকে উল্লেখযোগ্যভাবে পরিবর্তন করবে। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী, ২০২৪ সালে পুতিনের ক্ষমতায় থাকার চতুর্থ মেয়াদ শেষ হবে। মেয়াদ শেষ হওয়ার পর পুতিন বর্তমান সংবিধানের অধীনে আর রাশিয়ার নেতা থাকতে পারবেন না। তাই সংবিধান পরিবর্তনের এমন প্রস্তাব দিয়েছেন। যা তার ক্ষমতায় থাকা দীর্ঘায়িত করার ‘পদক্ষেপ’ হিসেবেই দেখছেন বিশ্লেষকরা।

এদিকে সাংবিধানিক পরিবর্তনে ওই প্রস্তাবের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভের সঙ্গে এক বৈঠকে অংশ নেন পুতিন।প্রেসিন্ডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে পদত্যাগ করে রুশ সরকার।  পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে মেদভেদেভ বলেন, পরিবর্তন বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় সব ধরনের পদক্ষেপ নিতে প্রেসিডেন্টকে সুযোগ দেওয়া উচিত।রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেছেন, প্রেসিডেন্টের প্রস্তাবগুলো রাশিয়ার ক্ষমতার ভারসাম্যকে উল্লেখযোগ্যভাবে পরিবর্তন করবে। তবে নতুন সরকার নিয়োগের আগে মেদভেদেভকে জাতীয় সুরক্ষা কাউন্সিলের উপ-প্রধান হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন পুতিন, যার সভাপতির দায়িত্বে থাকবেন ৬৭ বছর বয়সী পুতিন।২০২৪ সালে পুতিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার চার বছর আগে অপ্রত্যাশিতভাবেই এ ঘোষণা এলো। 

এরপর দ্রুতই প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দিমিত্রি মেদভেদেভের প্রতিস্থাপন হিসেবে মিখাইল মিশুস্তিনের নাম ঘোষণা করা হয়।প্রেসিডেন্ট পুতিন কর পরিষেবা প্রধান মিখাইল মিশুস্তিনকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনোনীত করেছেন মনোনীত করেন।বুধবার (১৫ জানুয়ারি) দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়।আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, রাজনৈতিকভাবে ‘অনভিজ্ঞ’ মিশুস্তিনকে নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেছে নিয়েছেন পুতিন। মূলত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য মিশুস্তিন যেন প্রেসিডেন্টের ওপর নির্ভরশীল থাকেন, সেজন্য তাকে বেছে নেওয়া হয়।