ভারতের অপরাধ বিখ্যাত শহরগুলো

0
675

ভারতের অপরাধ  বিখ্যাত শহরগুলো

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ জনসংখ্যার দেশ ভারত। প্রতিদিন দেশটিতে নানারকম অপরাধের খবর পাওয়া যায়। কোথাও না কোথাও এই অপরাধ সংগঠিত হলেও ভারতের বেশ কিছু অংশে কিছু বিশেষ বিশেষ অপরাধের পরিমাণ অনেক বেশি। বেশ কিছু অংশে কিছু বিশেষ বিশেষ অপরাধের বাড়বাড়ন্ত রয়েছে ৷ দেশটির কোন শহরে কোন অপরাধের প্রবণতা বেশি তা নিয়েই এই প্রতিবেদন।

নকল: পরীক্ষায় নকল করার জন্য বিহারের বদনাম রয়েছে কয়েক দশক ধরে৷ এতটাই গভীরে এই নকলের ধারা যে বেশ কয়েক বার সারা রাজ্যে প্রথম হওয়া শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধেও পরীক্ষায় নকল করার অভিযোগ ওঠে ও শিক্ষার্থীরা দোষীও সাব্যস্ত হয়৷

গাড়ি চুরি: উত্তর প্রদেশের মীরাট ও মুজফফরনগরের সাথে জড়িত হয়েছে বহু গাড়ি চুরির ঘটনা৷ শুধু তাই নয়, উত্তর ভারতের অন্যান্য শহরে গাড়ি চুরির ঘটনার তদন্ত থেকে উঠে এসেছে এই দুই শহরের দাগী আসামীদের নাম৷

খুন: মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে খুনের ঘটনা রমরমিয়ে চলে উত্তর প্রদেশের ইটাওয়া ও বুলন্দশহর অঞ্চলে৷ গত কয়েক বছরে এই দুই শহরের সাথে বিহারের বেগুসারাই শহরে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে খুনের ঘটনা, জানাচ্ছে ভারতের জাতীয় অপরাধ ব্যুরো৷

পরিচয়পত্র জালিয়াতি: ভোটার কার্ড বা ‘আধার’ জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতির ঘটনা কয়েক বছরে মারাত্মক হারে বেড়েছে৷ অপরাধ ব্যুরোর সাইবার ক্রাইম বিভাগ জানাচ্ছে, এমন অপরাধের হারে শীর্ষে রয়েছে দক্ষিণের শহর হায়দরাবাদ৷

লুট ডাকাতি: মধ্য প্রদেশ ও রাজস্থানের বিভিন্ন অঞ্চল লুটপাটের জন্য কুখ্যাত৷ হাইওয়ে সংলগ্ন বসতিহীন অঞ্চলগুলিই অপরাধীদের নজরে থাকে৷

আইটি ফ্রড’: তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে নতুন ধরেন অপরাধ৷ বেঙ্গালুরু, যেখানে রয়েছে বিশ্বের তাবড় তাবড় তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার দপ্তর, বর্তমানে ভারতের আইট ফ্রড বা তথ্যপ্রযুক্তি অপরাধের রাজধানী৷

ধর্ষণ : একের পর এক ভয়াবহ ধর্ষণের খবর সামনে আসার পর থেকে বলা হচ্ছে যে রাজধানী দিল্লিই ভারতের ‘ধর্ষণ রাজধানী’৷ যদিও এই দাবির সত্যতা যাচাই করার মতো কোনো তথ্য নেই, তাও দিল্লির গায়ে রয়েই গেছে এই তকমা৷

গুম বা অপহরণ : বেশ কয়েক দশক ধরে চলে আসা গুমের প্রবণতা এখনও ভারতের রাজ্য বিহারের পিছু ছাড়েনি৷ রাজনৈতিক প্রতিহিংসাজনিত কারণেই সেখানে বেশির ভাগ গুমের ঘটনা হয় বলে মনে করেন অনেকে৷

কয়লা মাফিয়া: কয়লা খনির জন্য বিখ্যাত ঝাড়খণ্ডে সক্রিয় আছে বহু মাফিয়া চক্র৷

বন্যপ্রাণীর চোরাশিকার ও পাচার : ভারতের উত্তরাখণ্ড, যেখানে রয়েছে বন্যপ্রাণীদের জন্য অভয়ারণ্য, বর্তমানে বন্যপ্রাণীদের চোরাশিকার ও পাচারের একাধিক চক্র৷ বাঘ, চিতাবাঘ ছাড়াও নানা রকমের পাখির চোরাপাচার হয় সেখান থেকে৷

মাদক বাজার: হিমাচল প্রদেশের কুলু ও মানালি অঞ্চলে রয়েছে মাদক-পর্যটনের ব্যাপক প্রচলন৷ বিশেষ করে বিদেশি পর্যটকদের মধ্যে রয়েছে এই অঞ্চলে আসার ঝোঁক৷ যার কারণ এই অঞ্চলে ব্যাপকহারে গাঁজা, আফিম ও চরসের উৎপাদন৷

সাইবারক্রাইম : ভারতীয় সাইবারক্রাইম গোয়েন্দাদের রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে ঝাড়খণ্ডের এই ছোট্ট শহরটি। বলা হচ্ছে, জামতারাই এখন ভারতীয় সাইবার অপরাধের রাজধানী। কারণ, গোটা দেশে যা সাইবার অপরাধ হয়, তার ৫০ শতাংশেরও বেশি করা হয় এখান থেকেই। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব-এর কথায়, ‘‌আপাতদৃষ্টিতে জামতারা ঝাড়খণ্ডের সাঁওতাল পরগনার একটি নিস্তরঙ্গ শহর। সাইবার প্রতারণার একটা বিরাট চক্র এই শহর থেকে কাজ করছে। বর্তমানে দেশের জনসংখ্যার একটা বড় অংশ অনলাইন লেনদেনের ওপরে নির্ভরশীল। জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার হিসেব অনুযায়ী ২০১৪, ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে যথাক্রমে দেশে ৯,৬০০, ১১,৫৯২ এবং ১২,৩১৭টি সাইবার অপরাধের অভিযোগ নথিভুক্ত করা হয়েছে।