কোন বাংলাদেশিকে চীন থেকে ফেরত আনা হবে না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

0
427

চীন থেকে উৎপত্তি হওয়া করোনা ভাইরাসের কারণে গোটা বিশ্বে এখন আতঙ্ক বিরাজ করছে। চীনের উহানে অনেক প্রবাসী বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে এনেছিল সরকার। তবে আর কোন বাংলাদেশিকে চীন থেকে ফেরত আনা হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক।

আজ বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ ঘোষণা দেন। মন্ত্রী বলেন, ‘চীন থেকে আর কাউকে ফেরত আনা হবে না।’ তবে কেউ অসুস্থ হলে সে দেশেই চিকিৎসা নেয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

চীনে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের দেশে ফিরতে নিরুৎসাহিত করে ডা. জাহিদ মালেক বলেন, ‘আত্মীয়স্বজন ও দেশের স্বার্থে উহানসহ চীনের করোনাভাইরাস আক্রান্ত এলাকায় থাকা বাংলাদেশি নাগরিকদের দেশে ফিরতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। দেশে এখনও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কাউকে শনাক্ত করা হয়নি। হাসপাতাল, চিকিৎসক, নার্স প্রস্তুত। করোনাভাইরাস দেখা দিলে তা ছড়িয়ে যাওয়া রোধে সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।’

চীনা নাগরিকদের সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘চীনা নাগরিকদের বাংলাদেশে আসতে হলে ভিসা নেয়ার পাশাপাশি মেডিকেল সার্টিফিকেট দেখাতে হবে। এ ছাড়া অনঅ্যারাইভ্যাল ভিসা বন্ধ করা হয়েছে সাময়িক সময়ের জন্য।’ এ সময় মাস্ক ব্যবহারের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সুস্থ ব্যক্তির এ মুহূর্তে মাস্ক পরার কোনো প্রয়োজন নেই।’

এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চীনের উহান থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিশেষ ফ্লাইটে মোট ৩১২ জনকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তাদের মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ২৯৭ জন, এক বছরের বেশি বয়সী ১২ জন ও এক বছরের নিচে তিনজন।

তাদের মধ্যে আটজনের শরীরে জ্বর ছিল। তাই তাদের কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাদের নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। বাকিদের রাজধানীর দক্ষিণখানের আশকোনা হজ ক্যাম্পে কোয়ারান্টাইন অবস্থায় রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে হাসপাতালে ভর্তি থাকাদেরও আশকোনা ক্যাম্পে নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। প্রাণঘাতী এই করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ৫৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।