ব্যয় সংকোচন : ব্যাংক কর্মীদের বেতন কমানোর ঘোষণা

0
577

ব্যবসা-বাণিজ্যসহ অর্থনীতির প্রতিটি শাখায়ই বিপর্যয় নামিয়েছে মহামারি নভেল করোনা ভাইরাস। বিশ্বব্যাপী চালানো তাণ্ডবের অর্থনৈতিক ক্ষতি এক দশকও লেগে যেতে পারে বলে পূর্বাভাস দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এমন পরিস্থিতিতে সবচেয়ে ভয়াবহ মন্দার পথে বিশ্ব অর্থনীতি। এ অবস্থায় অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে ব্যয় সংকোচনের পথে হাঁটছে  সব ব্যাংক। ব্যয় সংকোচনের প্রাথমিক পর্যায়ে নিয়ন্ত্রণ করা যায় এমন ব্যয় কমানোর উদ্যোগ নিয়েছে ব্যাংকগুলো, যার মধ্যে অন্যতম রয়েছে বিদ্যমান কর্মীদের বেতন-ভাতা কর্তন, কর্মী ছাঁটাইয়ের মতো কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়েও ভাবছেন ব্যাংক নির্বাহীরা।

বৃহস্পতিবার ১১ জুন সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাসরুর আরেফিন ব্যাংকের অর্ধশত জ্যেষ্ঠ কর্মীকে ডেকে বেতন কমানোর ঘোষণা দিয়েছেন, ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার অংশ হিসেবে দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেড  কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রায় ১৬ শতাংশ বেতন-ভাতা কমিয়েছে । বেতন কমানোর এই সিদ্ধান্ত চলতি বছরের ১ জুন থেকেই কার্যকর হবে। বহাল থাকবে ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

সিটি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বলছে, মুনাফা করার জন্য নয়, চলমান পরিস্থিতিতে লোকসান ঠেকাতে কোনো কর্মীকে ছাঁটাই না করে ১৫ শতাংশের একটু বেশি বেতন-ভাতা কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এমডি আরও জানিয়ে দিয়েছেন আগামী বছর (২০২১ সালে) সিটি ব্যাংক পারফরমেন্স বোনাস ও ইনক্রিমেন্ট দেবে না।

এ বিষয়ে সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাসরুর আরেফিন বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে গত তিনমাস ধরে আমাদের সবধরণের ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ রয়েছে। ঋণের সুদ ৯ শতাংশ করা এবং করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতি । ক্রেডিট কার্ডের গ্রাহকরা বিল পরিশোধ করছেন না। আমরা মুনাফা করার জন্য নয়, লোকসান না করে টিকে থাকার জন্য প্রায় ১৬ শতাংশ বেতন কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই পরিস্থিতিতে আমরা কোনো কর্মীকে ছাঁটাই করতে চাই না। বেতনধারী কর্মকর্তার বেতন কমলেও তিনি চলতে পারবেন। কিন্তু যদি চাকরি চলে যায় তাহলে পরিবার নিয়ে পথে বসতে হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আমাদের কর্মীরা ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে আগের সুযোগ-সুবিধা ফিরে পাবে।

বেসিক ব্যাংকে ‘বিগত সাত বছর লোকসান হওয়ায়, আগের মতো বেতন দেয়া সম্ভব হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। তবে বেসিক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা কমিয়ে এনে ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদের নেয়া সিদ্ধান্ত এক মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।