বিশ্বে অতি ধনী বৃদ্ধির হারে শীর্ষে বাংলাদেশ

0
475

গত একদশকে ধনী ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধির হারে শীর্ষে থাকা দশটি দেশের তালিকায় বাংলাদেশ শীর্ষে অবস্থান করছে৷ ২০১০ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত গত ১০ বছরে বাংলাদেশে প্রতিবছর গড়ে ১৪.৩ শতাংশ হারে ধনাঢ্য ব্যক্তির সংখ্যা বেড়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি গবেষণা সংস্থা ওয়েলথ এক্স৷ “ওয়েলথ এক্স” গত ১৪ মে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে৷ ‘A decade of Wealth’ শীর্ষক গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে। এতে গত একদশকে ধনী ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধির হারে শীর্ষে থাকা দশটি দেশের একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়৷ এক্ষেত্রে বিশ্ব তালিকায় সম্পদশালীর সংখ্যা বৃদ্ধির হারের দিক দিয়ে গত দশকে বাংলাদেশ শীর্ষে অবস্থান করছে৷ প্রতিবেদন বলছে, এই সময়ে বাংলাদেশে প্রতিবছর গড়ে ১৪ দশমিক তিন শতাংশ হারে ধনাঢ্য ব্যক্তির সংখ্যা বেড়েছে৷ তরুণ কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী ও আঞ্চলিক উতপাদন বৃদ্ধির কারণে অর্থনৈতিক প্রসার ঘটেছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, গত এক দশকে ধনীর সংখ্যা বেড়েছে—এমন দেশগুলোর মধ্যে ছোট–বড় অর্থনীতির মিশ্রণ রয়েছে। তালিকায় সবচেয়ে বেশি দেশ রয়েছে এশিয়ায়।  শীর্ষ ১০ দেশের মধ্যে ছয়টিই এশিয়ার৷ মূলত, যাদের সম্পদের পরিমাণ ৫০ লাখ ডলারের বেশি সম্পদের অধিকারী তাদের তথ্যই এই তালিকায় স্থান পেয়েছে৷ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভিয়েতনাম। এশিয়ার এই দেশটিতে সম্পদশালী ব্যক্তির সংখ্যা গত একদশকে প্রতিবছর বেড়েছে ১৩ দশমিক ৯ শতাংশ হারে৷ এখানেও তরুণ কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী ও আঞ্চলিক উতপাদন বৃদ্ধির কারণে অর্থনৈতিক প্রসার ঘটেছে।

এরপর চীন রয়েছে তালিকার তৃতীয় অবস্থানে। গত একদশকে চীনে ধনী ব্যক্তির সংখ্যা প্রতিবছর বাড়ার গড় হার ছিল ১৩ দশমিক পাঁচ শতাংশ৷ তবে এই সময়ে সবচেয়ে বেশি ধনী ব্যক্তি থাকা বিশ্বের শীর্ষ ৩০ শহরের ২৬টিই ছিল চীনের৷তালিকায় আফ্রিকার একমাত্র দেশ চতুর্থ অবস্থানে আছে কেনিয়া৷ সেদেশে ১৩ দশমিক এক শতাংশ হারে ধনীর সংখ্যা বেড়েছে৷এরপর পঞ্চম, ষষ্ঠ, সপ্তম অবস্থানে রয়েছে যথাক্রমে ফিলিপাইন্স (১১ দশমিক ৯ শতাংশ), থাইল্যান্ড (১০ দশমিক ৬ শতাংশ), নিউজিল্যান্ড (আট দশমিক ৭ শতাংশ)।

যুক্তরাষ্ট্র রয়েছে তালিকার অষ্টম অবস্থানে। গত এক দশকে অ্য়ামেরিকায় বছরে গড়ে ধনাঢ্য ব্যক্তি বৃদ্ধির হার ছিল আট দশমিক ২ শতাংশ৷ তবে দেশটিতে ৫০ লাখ ডলারের বেশি সম্পদ থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ২০১৯ সালে অন্যান্য দেশের চেয়ে অনেক বেশি ছিল৷ গতবছর বিশ্বের এমন মোট ব্যক্তির ৩৫.৯ শতাংশের বাস ছিল যুক্তরাষ্ট্রে৷ এশিয়ার আরেক দেশ পাকিস্তান  সাড়ে সাত শতাংশ পরিমাণ ধনী ব্যক্তি নিয়ে তালিকায় নবম স্থানে রয়েছে। তালিকায় দশম অবস্থানে থাকা ইউরোপের একমাত্র প্রতিনিধি দেশ আয়ারল্যান্ডে বছরে ধনী ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধির গড় হার ছিলো সাত দশমিক ১ শতাংশ৷

ওয়েলথ এক্সের গবেষণায় বলা হয়েছে, গত দশকটা ছিল ধনীদের দশক। ২০১০ সাল থেকে বিশ্বে ধনী ব্যক্তি ও তাদের সম্পদের পরিমাণ দুটই বেড়েছে । ২০০৫ সালে বিশ্বের মোট ধনীর ১৮ দশমিক ৬ শতাংশ ছিল এশিয়ায়। ২০১৯ সালে এসে তা ২৭ শতাংশে পোঁছেছে। সামগ্রিকভাবে সম্পদের এই বৃদ্ধির চালিত হয়েছে মূলত বৈশ্বিক অর্থনৈতিক কর্মক্ষমতা, পুঁজিবাজারের মান, বিশ্ববাজার এবং প্রতিটি দেশে জনসংখ্যার অনুপাতে সম্পদ বিতরণের ওপর।

ওয়েলথ এক্সের এই গবেষণায় দেখা গেছে, এশিয়ায় ৫০ লাখ ডলারের বেশি সম্পদশালী মানুষের সংখ্যা তিন গুণ হয়েছে। এক দশকে ১০ শতাংশ বেড়ে ২৭ শতাংশ হয়েছে। যদিও অঞ্চলভিত্তিক র সংখ্যায় উত্তর আমেরিকা এখনো আধিপত্য বজায় রেখেছে, ৩৯ শতাংশ।