রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আরও ১৬ বছর ক্ষমতায় থাকবেন।

0
492

রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আরও ১৬ বছর ক্ষমতায় থাকবেন

MOSCOW, RUSSIA – JUNE 30, 2020: Russia’s President Vladimir Putin (Photo by Alexei DruzhininTASS via Getty Images)

টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের ভ্লাদিমির পুতিন আবারও প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নেয়া নিয়ে সংবিধান পরিবর্তনের লক্ষ্যে বুধবার জুলাই ১, গণভোট অনুষ্ঠিত হয় রাশিয়ায়। গণভোটে পুতিনের ২০৩৬ সাল পর্যন্ত অর্থাৎ আরও ১৬ বছর  ক্ষমতায় থাকার বিষয়ে সমর্থন দিয়েছে দেশটির জনগণ।

ভোট গননা দেখা গেছে, পুতিন ভূমিধস জয় পেয়েছেন। জানা গেছে, যতো ভোট গণনা হয়েছে তার মধ্যে ৭০ শতাংশই সংবিধান পরিবর্তনে সায় দিয়েছে। তবে ২৯ ভাগ রায় দিয়েছে বিপক্ষে। তথা ২০২৪ সালে মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া রুশ প্রেসিডেন্ট আরও দুই মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হতে বাধা নেই এমন বিষয়ে সায় দিয়েছেন রাশিয়ানরা।

সাবেক কেজিবি প্রধান দুই দশক ধরে প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকায় থেকে রাশিয়াকে নেতৃত্ব দিতে আরও ১৬ বছর দেশটির প্রেসিডেন্ট পদে থাকার বাধা কাটল এই গণভোটে। এটিকে পুতিনের আজীবন ক্ষমতায় থাকার বাসনা পূরণ বলে সমালোচনা করছেন তার সমালোচকরা।

মাস্ক ছাড়া প্রেসিডেন্ট পুতিনকে ভোট দিতে দেখা যায়। রাশিয়ার দোর্দণ্ড প্রতাপশালী রাষ্ট্রনায়ক ভ্লাদিমির পুতিন এ নিয়ে চার মেয়াদে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন। প্রথম দুই মেয়াদে ৮ বছর ক্ষমতায় ছিলেন তিনি। ২০১২ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে সংবিধান সংশোধন করে পার্লামেন্টের মেয়াদ ৬ বছর করেন। ২০২৪ সালে তার চতুর্থ দফার মেয়াদ শেষ হবে। বর্তমানে পুতিনের বয়স  ৬৭ । ২০৩৬ সালে  তাঁর বয়স হবে ৮৩ বছর।

মাঝে যে ৪ বছর তিনি প্রেসিডেন্ট পদে ছিলেন না, সে সময়ও তিনি ছিলেন ক্ষমতার খুব কাছাকাছি। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা বজায় রাখতে বিশ্বস্ত ও অনুগত একজনকে প্রেসিডেন্ট করে নিজে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন ৪ বছর। পরে আবারও প্রেসিডেন্ট পদে লড়ে ক্ষমতায় আসেন। দীর্ঘ এই শাসনকালে সাবেক কেজিবিপ্রধান নিজেকে রাশিয়ার একজন শক্তিশালী শাসকে পরিণত করেছেন। এতেও ক্ষান্ত হননি তিনি। আরও ক্ষমতায় থাকার ইচ্ছা তার। এ কারণেই এই গণভোট। রাশিয়ার বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী, এক ব্যক্তি একটানা দুবারের বেশি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করতে পারেন না।

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ২০০০ সাল থেকে দুই মেয়াদে চার বছর করে মোট আট বছর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ছিলেন। এর পর সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা পালন করতে তিনি নিজের অনুগত রাজনীতিবিদ দিমিত্রি মেদভেদেভকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী করে নিজে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন। ২০১২ সালে মেদভেদেভের মেয়াদ শেষ হলে পুতিন আবার প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসেন।