২০৩১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক বাংলাদেশ

0
40

২০৩১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক বাংলাদেশ

২০৩১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের মাটিতে। তাও যৌথভাবে আয়োজন করবে ভারতের সঙ্গে ।ঘরের মাঠে সেই বিশ্বকাপ দেখতেও অপেক্ষায় থাকতে হবে দশ বৎসর।

মঙ্গলবার প্রতিযোগিতামূলক বিডিং ১৪টি ভিন্ন ভিন্ন দেশে আয়োজনের ৮টি নতুন টুর্নামেন্টের ঘোষণা দিয়েছে আইসিসি। সেই সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে ফিরেছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিও।  আইসিসির গঠিত বোর্ড আগ্রহী দেশগুলোর ব্যাপারে যাচাই-বাছাই করে দেখার পর এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আইসিসির প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, আগামী ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করবে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পরের বছর পাকিস্তানের মাটিতে বসবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আসর। ভারতে ১টি একক ও ২টি যৌথভাবে।

২০২৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করবে ভারত-শ্রীলঙ্কা। পরের বছর ২০২৭ ওয়ানডে বিশ্বকাপ মিলিতভাবে আয়োজন করবে দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়ে ও নামিবিয়া।

২০২৮ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। পরের বছর চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আসর বসবে ভারতে।

২০৩০ সালে ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ড মিলে আয়োজন করবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। পরের বছর বাংলাদেশ ও ভারত যৌথভাবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজন করবে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির বিডে বাংলাদেশ আলাদাভাবে অংশগ্রহণ করে। এজন্য যে কয়টি স্টেডিয়াম দরকার তা বাংলাদেশের আছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে বিড করেছে বাংলাদেশ। এককভাবে আয়োজনের জন্য যে পরিমাণ স্টেডিয়াম দরকার তা বাংলাদেশের নেই। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান মিলে বিড করেছে। আর টি-টোয়েন্টিতে করেছে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে। ‘

বিসিবি সভাপতির কথামতো আইসিসির বিশ্ব আসর আয়োজনের নতুন চক্রে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ আয়োজনের জন্য এককভাবে বিড করেছিল বাংলাদেশ। আর ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য বিড করেছিল যৌথভাবে। কিন্তু বাংলাদেশ শুধু পেয়েছে যৌথভাবে আয়োজনের সুযোগ। এর আগে ২০১৪ সালেও বাংলাদেশ এককভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল। অথচ জঙ্গি উপদ্রবের কারণে প্রায় এক দশক যে পাকিস্তানে আন্তর্জতিক ক্রিকেট বন্ধ ছিল, ২০২৫ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি এককভাবে পাকিস্তান আয়োজন করবে। ১৯৯৬ সালের পর এই প্রথম কোনো বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট হবে দেশটিতে।

৮ বছরের চক্রে সবচেয়ে বেশি টুর্নামেন্ট পেয়েছে ভারত। সদ্য সমাপ্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজকও ছিল দেশটি। যদিও করোনা মহামারির কারণে তাদের বাধ্য হয়ে আসর আয়োজন করতে হয় ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে। কিন্তু এবার তারা পাচ্ছে আরও ৩টি আসর আয়োজনের দায়িত্ব। ২০২৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যৌথভাবে হবে ভারত ও শ্রীলঙ্কায়। এরপর ২০২৯ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির একক আয়োজক দেশটি। আর ২০৩১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের তাদের সহ-আয়োজক বাংলাদেশ। তাছাড়া ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপও আয়োজন করবে ভারত।

আর ২০২৭ ওয়ানডে বিশ্বকাপ দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুয়ের সঙ্গে যৌথভাবে আয়োজন করবে নামিবিয়া। এছাড়া ২০২৮ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর বসবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে এবং ২০৩০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ড।