যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল

0
78

যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল

২৪ জুন সুপ্রিম কোর্ট পাঁচ দশক আগেকার ১৯৭৩ সালের  ‘রো বনাম ওয়েড’ নামে পরিচিত মামলার সেই যুগান্তকারী রায় পাল্টে দিয়েছে। শীর্ষ আদালত গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করে দিয়ে গর্ভপাতের অনুমোদন দেওয়া বা না দেওয়ার সিদ্ধান্তের ক্ষমতা প্রতিটি অঙ্গরাজ্যের ওপর ছেড়ে দিয়েছে। পুরোনো রায়টিতে নারীদের জন্য গর্ভধারণের প্রাথমিক পর্যায়ে গর্ভপাতের অধিকারের নিশ্চয়তা দিয়েছিল।
মিসিসিপি অঙ্গরাজ্যে গর্ভধারণের ১৫ সপ্তাহের পর গর্ভপাত নিষিদ্ধ করাকে চ্যালেঞ্জ করে আনা এক মামলার রায়ে সুপ্রিম কোর্ট রাজ্য সরকারের পক্ষে রায় দিলে গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার কার্যত রহিত হয়ে যায়।
মার্কিন সুপ্রিম কোর্টে এখন রক্ষণশীল বিচারকরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার রহিত করার পক্ষে মতামত দেন ছয়জন বিচারক, বিপক্ষে দেন তিনজন।ধারণা করা হচ্ছে এই রায়ের পর অর্ধেকের বেশি অঙ্গরাজ্যে গর্ভপাত নিষিদ্ধ হবে অথবা এর ওপর নানারকম বিধিনিষেধ আরোপ করা হতে পারে।
দক্ষিণ-পন্থী ও ধর্মীয় রক্ষণশীলদের জন্যে এই সিদ্ধান্ত অনেক বড় বিজয়। তারা ১৯৭৩ সালে গর্ভপাতকে বৈধতা দেওয়ার পর থেকেই এর বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছিল।
প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন নিষ্ঠুর এই সিদ্ধান্তের অর্থ হচ্ছে নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় মধ্যবর্তী নির্বাচনে নারীর অধিকারের বিষয়টি নির্বাচনী ইস্যু হিসেবে বিবেচিত হবে।
সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। শীর্ষস্থানীয় ডেমোক্র্যাটরা সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্তের নিন্দা করেছেন। সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা একে মৌলিক স্বাধীনতার ওপর আক্রমণ বলে উল্লেখ করেছেন।
এই রায়ের বিরুদ্ধে দেশটির বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন প্রতিবাদকারীরা।আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ও বার্তা সংস্থাগুলো জানিয়েছে- রায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে নিউইয়র্ক, আটলান্টা, ডেট্রয়েট ও লস অ্যাঞ্জেলস শহরে সমবেত হয় মানুষজন।এদিকে, শুক্রবার আদালতের রায় ঘোষণার পর থেকে ওয়াশিংটনে গর্ভপাতের অধিকারের পক্ষের ও বিপক্ষের, উভয় দিকের প্রবক্তারাই সুপ্রিম কোর্টের বাইরে জড়ো হতে শুরু করেন। সমবেত মানুষের এই ভিড় আগামীতে আরও বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।