সাদার্ন ইউনির্ভাসিটি শিক্ষার্থীদের জন্য আর্থিক সহযোগিতা প্রদান

0
698

সাদার্ন ইউনির্ভাসিটি শিক্ষার্থীদের জন্য আর্থিক সহযোগিতা প্রদান

সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, করোনা-ভাইরাসের কারণে গত ১৮ মার্চ থেকে সাদার্ন ইউনির্ভাসিটির ক্যম্পাস বন্ধ রয়েছে এবং কয়েক ধাপে তা জুলাই পর্যন্ত বেড়েছে। করোনা-ভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

মহামারীর এই সময়ে সবাই কমবেশি সমস্যায় পড়েছে। একদিকে পড়াশোনার ক্ষতি, অন্যদিকে আর্থিক সংকট । বিশেষ করে অনেক অভিভাবক আর্থিক সমস্যায় আছেন । তুলনামুলক ভাবে এই বিশ্ববিদ্যালযয়ের ফি কম হওয়ার পরও বিদ্যমান পরিস্থিতিতে সাদার্ন ইউনির্ভাসিটি কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের ফি আদায়ে সহজ করন এবং আর্থিক সহযোগিতার প্রদান করার সিদ্বান্ত নিয়েছে । যাতে  চলমান শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত না হয় এবং ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকে ।

ক্যম্পাস ভিত্তিক শ্রেণী শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও অভ্যন্তরিন সকল প্রশাসনিক কার্যক্রম এবং অনলাইনে সকল কার্যক্রম চলছে। এঅবস্থায় মহামারী এইসময়ে নতুন শিক্ষার্থীদের জন্য ভর্তি বাবদ ৫০% ছাড় । স্নাতক পাশ করে স্নাতকোত্তরে ভর্তি হতে ইচ্ছুক সাদার্ন ইউনির্ভাসিটির শিক্ষার্থীদের জন্য ভর্তি বাবদ ১০০% ছাড় দেওয়া হয়েছে । মহামারীকালিন সকল  শিক্ষার্থীদেরকে এক সেমিস্টার শেষ করে পরবর্তি সেমিস্টার থেকে মেধা অনুযায়ী ২০% – ১০০% পযর্ন্ত আর্থিক সহযোগিতার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে । মহামারী চলাকালিন কোন বিলম্ব ফি, লাইব্রেরীর ফি, এনরোলমেন্ট ফি দিতে হবে না । উল্লেখ্য সাদার্ন ইউনির্ভাসিটিতে কোন উন্নয়ন ফি, সেমিস্টার ফি এবং পরিক্ষার ফি নাই ।

বিশ্ববিদ্যালযয়ের প্রধান আয়ের উৎস শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রাপ্ত ফি। সাদার্ন ইউনির্ভাসিটি সরকার বা কারো কাছ থেকে কোন অনুদান পায় না । করোনাভাইরাসের কারণে তৈরি হওয়া পরিস্থিতির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় সরকারি নির্দেশনা মেনে শ্রেণী শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে । যার ফলে কোনো টিউশন ফি আদায় হচ্ছে না। এত বিশ্ববিদ্যালয়ে বাড়ছে তহবিল সংকট।

ক্যম্পাস ভিত্তিক শ্রেণী কার্য্রক্রম বন্ধের কারণে আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিব সহজ কিস্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে । যাতে বিশ্ববিদ্যালয় এবং শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকে এবং শিক্ষক-কর্মকতা-কর্মচারীর বেতন, যাবতীয় কর, বিদুৎ, ওয়াশা, গ্যাস ও ইন্টারনেট বিল সহ অন্যান্য বিল পরিশোধ করতে পারে । বিশ্বব্যাপি এই মহা সংকটে বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্তিত্ব যেন হুমকির মুখে না পড়ে সকলের ইতিবাচক সাড়া প্রত্যাশা করছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ।’

বিজ্ঞপ্তি